দৌলতদিয়া ঘাটে পারের অপেক্ষায় পণ্যবাহী ট্রাক, ৩ পন্টুন স্থানান্তর –


আজু সিকদার, রাজবাড়ী বার্তা ডট কম :

দেশের গুরুত্বপূর্ণ দৌলতদিয়া-পাটুরিয়া নৌরুটে তীব্র ঝড়ের প্রভাবে শনিবার রাতে ৩ ঘন্টা বন্ধ ছিল যানবাহন পারাপার। এছাড়া তীব্র ঢেউয়ের আঘাতে দৌলতদিয়ার ৩টি ফেরিঘাটের পন্টুন স্থানান্তর হওয়ায় দীর্ঘ সময় ঘাট ৩টি বন্ধ থাকে। একই সাথে রয়েছে ফেরি সংকট। এতে করে শনিবার রাত থেকে দৌলতদিয়া ঘাট এলাকায় নদী পারের অপেক্ষায় শতশত যানবাহন আটকা পড়ছে। রোববার বিকাল সাড়ে ৪টা নাগাদ প্রায় ৩ কিমি জুড়ে ৪ শতাধিক বিভিন্ন যানবাহন আটকা পড়ে।
বিআইডব্লিউটিসি সূত্রে জানা যায়, ঝড়ের কবলে পড়ে শনিবার রাত সন্ধ্যা ৭টা থেকে রাত ১০টা পর্যন্ত টানা ৩ ঘন্টা দৌলতদিয়া-পাটুরিয়া নৌরুটে ফেরি ও লঞ্চ চলাচল সম্পূর্ণরূপে থাকে। এ সময় তীব্র বাতাস ও ঢেউয়ের তোড়ে দৌলতদিয়ার ১, ৪ ও ৫নং ফেরিঘাটের পন্টুন স্থানান্তর হয়ে উপরে উঠে আসে।রোববার সকাল ৭টার দিকে উদ্ধারকারী র‌্যাকার দিয়ে পন্টুনগুলোকে যথাস্থানে স্থাপন করা হয়। টানা ৯ ঘন্টা ওই ৩টি ঘাট দিয়ে ফেরি চলাচল বন্ধ ছিল।
এদিকে প্রাকৃতিক সমস্যার পাশাপাশি গুরুত্বপূর্ণ এ রুটে মাত্র ৬টি রোরো (বড়) ও ৮টি ছোট ফেরি মিলে ১৪টি ফেরি রোববার বিকেল পর্যন্ত সচল ছিল। রোরো ফেরি শাহ মখদুম, আমানত শাহ ও ইউটিলিটি ফেরি মাধবীলতা যান্ত্রিক সমস্যার কারণে স্থানীয় কারখানায় মেরামতে আছে। ৩টি রোরো ফেরি বড় ধরণের মেরামতের জন্য দীর্ঘদিন ধরে রয়েছে নারায়ণগঞ্জ ডকইয়ার্ডে।
ঝড়ে দীর্ঘ সময় ফেরি ও ঘাট বন্ধ এবং ফেরি কমে যাওয়ায় চলমান ফেরিগুলো দিয়ে উভয় পারে আটকে থাকা শতশত যানবাহন পারাপারে সমস্যা হচ্ছে। ফলে আটকে থাকা যাত্রী ও চালকদের দুর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে।
সরেজমিন জানা যায়, রোববার বিকেল সাড়ে ৫টা নাগাদ দৌলতদিয়া প্রান্তে ৩ শতাধিক পণ্যবাহী ট্রাক ও কাভার্ডভ্যান এবং শতাধিক যাত্রীবাহী বাস নদী পারের অপেক্ষায় মহাসড়কে আটকে আছে। যাত্রীবাহী যানবাহনগুলোকে অগ্রাধিকার দিয়ে পার করায় পণ্যবাহী যানবাহনগুলোর সারি ক্রমেই দীর্ঘ হচ্ছে।
দৌলতদিয়া মডেল হাইস্কুল এলাকায় সিরিয়ালে আটকে থাকা ট্রাক ফয়সাল হোসেন, সাহের মন্ডল, গৌতম দাসসহ অনেকেই বলেন, আমরা শনিবার রাত ১১টার দিকে ঘাটে এসে সিরিয়ালে আটকে পড়েছি। আজও (রবিবার) নদী পার হওয়ার কোন আশা দেখছি না। মহাসড়কে আটকে থেকে বিভিন্ন ধরণের দুর্ভোগ হচ্ছে। অথচ অনেক ট্রাক চালককে দেখছি দালাল ধরে অবৈধভাবে যাত্রীবাহী বাসের সাথে দ্রুত নদী পার হয়ে যাচ্ছে।
বিআইডব্লিউটিসি’র দৌলতদিয়া ঘাট শাখার ব্যবস্থাপক সফিকুল ইসলাম জানান, ঝড়ে ৩ ঘন্টার মতো ফেরি চলাচল বন্ধ থাকা, পন্টুন স্থানান্তর হয়ে ঘাট কমে যাওয়া ও ৩টি ফেরি না থাকার কারণে যান পারাপার ব্যাহত হচ্ছে। এ অবস্থায় মানুষের দুর্ভোগ কমাতে অপচনশীল মালবাহী যানবাহনগুলোকে কম পার করে যাত্রীবাহী ও অন্যান্য জরুরী যানবাহনগুলোকে অগ্রাধিকার দিয়ে নদী পার করছি। ফলে ঘাটে অপচনশীল পণ্যবাহী যানবাহনগুলোর সিরিয়াল সৃষ্টি হয়েছে। আমরা সেগুলোকে নিয়ম মাফিক পার করার চেষ্টা করছি

(Visited 42 times, 1 visits today)