মোবাইলে প্রেম, প্রেমিকাকে যৌনপল্লীতে বিক্রির চেষ্টা ও গ্রেপ্তার-

মেহেদী হাসান মাসুদ, রাজবাড়ী বার্তা ডট কম :

রাজবাড়ীতে গোয়ালন্দে দৌলতদিয়া যৌনপল্লীতে বিক্রির সময় অল্পের জন্য রক্ষা পেল এক কিশোরী (১৫)। এ ঘটনায় মিজানুর রহমান ওরফে জিয়ারুল ইসলাম (৩৬) নামে এক যুবককে গ্রেপ্তার করেছে গোয়ালন্দ ঘাট থানা পুলিশ। গ্রেপ্তারকৃত মিজানুর রাজশাহী জেলার বাঘা উপজেলার লক্ষীনগর গ্রামের তফিল উদ্দিন গারোয়ানের ছেলে। আজ বৃহস্পতিবার সকালে গোয়ালন্দ ঘাট থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মো: এজাজ শফী বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।
জানাগেছে, গত বুধবার রাতে দৌলতদিয়ার যৌনপল্লী এলাকার ১নং গেটের পাশে কুষ্টিয়া চুয়াডাঙ্গা বোডিংয়ের সামনে থেকে ওই কিশোরীকে উদ্ধার করা হয়।
প্রতারনার স্বীকার ও কিশোরী জানায়, মিজানুর রহমানের সাথে মাত্র এক মাস পূর্বে মোবাইল ফোনের মাধ্যমে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে উঠে। সে আমাকে বিয়ের আশ্বাস দিয়ে গত বুধবার দুপুরে রাজধানী ঢাকার আশুলিয়া থেকে বাসে তুলে পাটুরিয়া ফেরী ঘাটে তাকে আনে। পরবর্তীতে ফেরী পার করে তাকে এখানে নিয়ে আসে। সে আমার সাথে প্রেমের নামে প্রতারনা করেছে। কিশোরী বলেছে, সে গোয়ালন্দ থানা পুলিশের কাছে চিরকৃতজ্ঞ। তারা সময়মত উপস্থিত না হলে হয়ত তাকে চিরদিনের জন্য অন্ধকার জগতে পড়ে থাকত হতো।
গোয়ালন্দ ঘাট থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মো: এজাজ শফী জানান, গোপন সংবাদের ভিত্তিতে যৌনপল্লীতে বিক্রির চেষ্টাকালে কিশোরীকে উদ্ধার করা হয়েছে। এসময় মিজানুর রহমানকে হাতে নাতে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। তার বিরুদ্ধে ২০১২ সালের মানবপাচার প্রতিরোধ ও দমন আইনে মামলা দায়ের করা হয়েছে। এ ঘটনায় আরও ২/৩ জন জড়িত আছে বলে প্রাথমিক ভাবে জানা গেছে। আসামী মিজানুরকে গ্রেপ্তার দেখিয়ে রাজবাড়ী আদালতে পাঠানো হয়েছে।

(Visited 212 times, 1 visits today)