গোয়ালন্দে অবৈধ স্পিড ব্রেকারে আটকে প্রাইভেটকার খাদে


আজু সিকদার, রাজবাড়ী বার্তা ডট কম :

গোয়ালন্দ উপজেলায় অবৈধ ভাবে মাটি কেটে তা পরিবহনের জন্য বিভিন্ন সড়কের ওপর দিয়ে পাইপ স্থাপনের জন্য বিশেষ বিট তৈরী করা হয়েছে। সড়কে এ সকল বিট স্থাপন করায় যানবাহন চলাচল বিঘ্নিত হওয়া ছাড়াও প্রায়ই ঘটছে দূর্ঘটনা।
বৃহস্পতিবার দুপুরে উপজেলার কাটাখালী বাজার এলাকায় স্থাপন করা এ ধরনের একটি বিটে প্রাইভেটকার আটকা পড়ে। গাড়ির চালক প্রাইভেটকারটি উদ্ধার করতে গিয়ে সড়কের পাশের খাদে পড়ে যায়। এতে প্রাইভেটকারের চালক জালাল উদ্দিন (৩০) আহত হওয়াসহ গাড়িটি চরম ক্ষতিগ্রস্থ হয়।
প্রাইভেটকারের চালক জালাল উদ্দিন জানান, তিনি রাজবাড়ী সদর উপজেলার ভান্ডারিয়া থেকে গাড়ির মালিককে নিয়ে গোয়ালন্দ উপজেলা দেবগ্রাম যাচ্ছিলেন। কাটাখালী বাজার পার হয়ে তার প্রাইভেটকারটি অবৈধ ভাবে সড়কে স্থাপিত উচু বিটে আটকা পড়ে। গাড়ির যাত্রীদের নামিয়ে গাড়িটি উদ্ধার করতে গিয়ে নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে সড়কের পাশে পড়ে যায়। এ সময় স্থানীয়রা এগিয়ে এসে গাড়ির ভিতর থেকে তাকে উদ্ধার করে। এতে তিনি সামান্য আহত হলেও প্রাইভেটকারটি চরম ক্ষতিগ্রস্থ হয়।
ঘটনাস্থলে উপস্থিত ছোটভাকলা ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সভাপতি আবুল কালাম আজাদ জানান, সরকারী ভাবে ড্রেজিং কার্যক্রম অবৈধ হলেও গুরুত্বপূর্ণ বিভিন্ন সড়কের উপরে পাইপ স্থাপনের জন্য বিশেষ কায়াদায় বিট তৈরী করা হয়েছে। প্রশাসনের কর্তাব্যাক্তিরা এ সকল সড়ক দিয়ে চলাচল করে। তারাও এই বিটগুলোর উপর দিয়েই যায়। কিন্তু অজ্ঞাত কারণে এ গুলো অপসারনের উদ্যোগ গ্রহন করে না। একদিকে ড্রেজিং কার্যক্রমই অবৈধ তারপর গুরুত্বপূর্ণ সড়কের উপরে বিট তৈরী করে যান চলাচল ব্যহত করছে। এতে সাধারন মানুষ মনে করে যে প্রশাসনকে ম্যানেজ করে এ সকল ড্রেজিং কার্যক্রম চালানো হচ্ছে।
নাম প্রকাশ না করার শর্তে সেখানে উপস্থিত একাধিক ব্যাক্তি জানায়, নদী থেকে অবৈধ ভাবে ড্রেজিংয়ের মাধ্যমে বালি উত্তোলন করে তা পাইপের মাধ্যমে মাইলের পর মাইল পরিবহন করে তা বিক্রি করছে। এই অনিয়ম যেন নিয়মে পরিনত হয়েছে। প্রশাসনকে ম্যানেজ না করে এ ধরনের কার্যক্রম পরিচালনা অসম্ভব। এসময় তারা ড্রেজিং কার্যক্রম বন্ধ ও গুরুত্বপূর্ণ সড়ক গুলো থেকে অবৈধ বিট অপসারনের দাবি জানান।
এ বিষয়ে গোয়ালন্দের সহকারী কমিশনার (ভুমি) ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট আব্দুল্লাহ আল মামুন বলেন, খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে গিয়ে অবৈধ ভাবে স্থাপন করা ওই বিট অপসারন করা হয়েছে। সেই সাথে বিট স্থাপনকারী বাবলু সরদারকে প্রাইভেট কারের মালিককে ২০ হাজার টাকা ক্ষতিপুরন দেয়ার নির্দেশ দেয়া হয়েছে। তিনি আরো জানান, অবৈধ ড্রেজিংয়ের বিরুদ্ধে প্রতিনিয়ত অভিযান চলছে। গত এক সপ্তাহে কয়েকটি ড্রেজিং মেশিন ধ্বংস করা সহ বিভিন্ন দন্ড দেয়া হয়েছে।

(Visited 105 times, 1 visits today)