পাংশায় নির্বাচনী অফিস ভাঙচুর ও হুমকির প্রতিবাদ স্বতন্ত্র প্রার্থীর-

মাসুদ রেজা শিশির, রাজবাড়ী বার্তা ডট কম :

রাজবাড়ীর পাংশা উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে আওয়ামীলীগের স্বতন্ত্র প্রার্থী (আনারস প্রতীক) মোঃ ফরিদ হাসান ওদুদ নির্বাচনী আচরণ বিধি ভঙ্গ, নির্বাচনী অফিস ভাঙচুর ও কর্মী-সমর্থকদের হুমকির প্রতিবাদ জানিয়েছে। মঙ্গলবার নিজ বাসভবনে সাংবাদিক সম্মেলনে নানা অভিযোগ তুলে ধরে তিনি বলেন, “আমার প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থী এ, কে, এম শফিকুল মোরশেদ আরুজ এর কর্মী-সমর্থকরা আমার কর্মী-সমর্থকদের ভয়ভীতি ও হুমকি দিচ্ছে। ভোটাররা যাতে নির্বিঘ্নে ভোট কেন্দ্রে যেতে না পারে তার জন্যও এলাকায় আতঙ্ক সৃষ্টি করছে।

গত ১৮ই মার্চ তারিখে সন্ধ্যায় পাংশা পৌরসভার কাউন্সিলর অতুর সরদারের নেতৃত্বে ৩০-৩৫ জনের একদল সন্ত্রাসী বাহিনী মৌরাট ইউনিয়নের মহিষভাঙ্গা বাজারে আমার নির্বাচনী অফিসে গিয়ে অফিস বন্ধের হুমকি দিয়েছে বলেও অভিযোগ করেন তিনি। সেখানে উপস্থিত ফরিদ হাসানের কর্মী-সমর্থকদের প্রাণনাশের হুমকি দেওয়া হয় বলেও জানিয়েছেন তিনি। সেখান থেকে ফিরে অতুর সরদার ও সরিষা ইউপি চেয়ারম্যান আজমল-আল বাহার বিশ্বাসের ভাই পিকুল বিশ্বাসের নেতৃত্বে মৌরাট ইউনিয়নের দত্তের হাট মোড়ে আমার অফিস ভাঙচুর করে এবং এলাকায় আতঙ্ক সৃষ্টি করার জন্য সেখানে বোমা বিস্ফোরণ ঘটায়।

এছাড়াও উপজেলার মাছপাড়া ইউপি চেয়ারম্যান খন্দকার সাইফুল ইসলাম বুড়ো’র বিরুদ্ধে কলিমহর ও মাছপাড়া ইউনিয়নে রাতের আঁধারে তার আনারস প্রতীকের ঝুলন্ত সকল পোস্টার ছিড়ে ফেলার অভিযোগ করেন। এসময় তিনি নির্বাচনে স্থানীয় এমপির নিরপেক্ষতা ও নির্বাচনের দিন ভোটারদের নির্বিঘ্নে ভোট দেয়ার পরিবেশ সৃষ্টির জন্য প্রশাসনের সুদৃষ্টি ও আশু হস্তক্ষেপ কামনা করেন। সাংবাদিক সম্মেলনে যশাই ইউপি চেয়ারম্যান মোঃ সিদ্দিকুর রহমান, আ.লীগ নেতা আহম্মদ আলী মালু, মোঃ শাহজাহান, জাহাঙ্গীর মন্ডল, আব্দুল মোমিন মন্ডল, মিজানুর রহমান, আরিফুল ইসলাম ও রিপন মুন্সী প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।
ভাংচুর ও হুমকী-ধামকীর ঘটনা অস্বীকার করে নৌকা প্রতীকের প্রার্থী এ, কে, এম শফিকুল মোরর্শেদ আরুজ জানান, তিনি ও তার কর্মীরা সন্ত্রাসী কর্মকান্ডে বিশ্বাসী নন বরং আনারস প্রতীকের স্বতন্ত্র প্রার্থী ও তার পরিবারের সদস্যরাই সন্ত্রাসী কার্যক্রম পরিচালনা করে আসছে। তবে তিনি এখনো ওই প্রার্থীর বিরুদ্ধে নির্বাচন কমিশনে কোন অভিযোগ করেননি। তার দাবী ওদুদের লোকজনই নিজেদের অফিস ভাংচুর করে তাদের দায়ী করছেন।

(Visited 216 times, 1 visits today)