দৌলতদিয়ায় ইজতেমাগামী গাড়ীর দীর্ঘ সিরিয়াল, দুর্ভোগ –

আজু সিকদার, রাজবাড়ী বার্তা ডট কম :

গাজীপুরের টঙ্গিতে আগামী শুক্রবার থেকে শুরু হতে যাচ্ছে মুসলিম বিশ্বের দ্বিতীয় বৃহত সমাবেশ বিশ্ব ইজতেমা। ইজতেমায় যোগ দেয়ার উদ্দেশ্যে বুধবার থেকে দেশের দক্ষিণাঞ্চল হতে ধর্মপ্রাণ মুসল্লিরা রওনা করেছেন। তাদেরকে বয়ে আনা বহু যানবাহন একযোগে আসতে শুরু করায় বুধবার দুপুরের পর থেকে দক্ষিণবঙ্গের প্রবেশ দ্বার দৌলতদিয়া ঘাটের যানবাহনের দীর্ঘ সিরিয়াল সৃষ্টি হচ্ছে। এতে করে মুসল্লিরাসহ সংশ্লিষ্ট সকলে দুর্ভোগের শিকার হচ্ছেন।
বিআইডব্লিউটিসি ও ট্রাফিক পুলিশ জানিয়েছে, শুক্রবার থেকে টঙ্গীতে ৪দিন ব্যাপী বিশ্ব ইজতেমা শুরু হতে যাচ্ছে। ইজতেমায় যোগ দিতে যাওয়া মুসল্লিদের দৌলতদিয়া ঘাট দিয়ে নির্বিঘেœ নদী পার করার লক্ষে তাদের পূর্ণ প্রস্তুতি রয়েছে। তবে বুধবার দুপুরের পর থেকে একযোগে বহু সংখ্যক গাড়ী আসতে থাকায় ঘাট এলাকায় মহাসড়কে সিরিয়ালের সৃষ্টি হচ্ছে। এ অবস্থায় মুসল্লিদের দুর্ভোগ কমাতে অপচনশীল পণ্যবাহী যানবাহন পারাপার বন্ধ রেখে ইজতেমাগামী গাড়ী ও অন্যান্য যাত্রীবাহী যানবাহনগুলোকে অগ্রাধিকার দিয়ে নদী পার করা হচ্ছে। এতে করে দৌলতদিয়া ইউনিয়ন পরিষদ পর্যন্ত প্রায় ৩কিমি জুড়ে ৩শতাধিক যানবাহন আটকে পড়েছে। এরমধ্যে শতাধিক পণ্যবাহী যানবাহন রয়েছে।
সরেজমিন বিকেলে দৌলতদিয়া ক্যানেল ঘাট এলাকায় কথা হয়। এ সময় খুলনার ডুমুরিয়া উপজেলা হতে আসা মুফতি ফখরুল হাসান, মো. আবু জাফর, জিয়াউল ইসলাম, আব্দুল্লাহসহ কয়েকজন জানান, তারা কয়েকজনের একটি দল ইজতেমার উদ্দেশ্যে আল্লাহর রাস্তায় বের হয়েছেন। এখানে এসে সিরিয়ালে আটকা পড়েছেন। এতে কিছুটা সমস্যা হলেও আমরা পরিস্থিতি বুঝে মানিয়ে চলতে জানি।
পিরোজপুরের ভান্ডারিয়া হতে আসা অবসরপ্রাপ্ত সরকারি কর্মকর্তা হাজী নুরুল হক জানান, আমরা বেশ কয়েকজন একটি বাস বোঝাই করে ইজতেমায় যাচ্ছি। এখানে সিরিয়ালে আটকে পড়ায় পাশের মসজিদের যোহরের নামাজ আদায় ও সঙ্গে থাকা শুকনো খাবার খেয়ে নিয়েছি।
দৌলতদিয়া ঘাটে কর্মরত রাজবাড়ীর ট্রাফিক ইন্সপেক্টর আবুল হোসেন জানান, ঘাট ও মহাসড়ক এলাকায় বিপুল সংখ্যক পুলিশ মোতায়েন আছে। অতিরিক্ত গাড়ীর চাপে সিরিয়ালের সৃষ্টি হলেও মুসল্লিদের যাতে ভোগান্তি না হয় সেদিকে তারা বিশেষ নজর রাখছেন।
বিআইডব্লিউটিসি’র দৌলতদিয়া ঘাট ব্যবস্থাপক সফিকুল ইসলাম জানান, দৌলতদিয়া-পাটুরিয়া নৌরুটে ১৬টি ফেরি সচল আছে। ঘাট ও চ্যানেলেও কোন সমস্যা নেই। আটকে থাকা যানবাহনগুলো হতে ইজতেমাগামী ও অন্যান্য যাত্রীবাহী যানবাহনগুলোকে অগ্রাধিকার দিয়ে নদী পার করা হচ্ছে।

(Visited 43 times, 1 visits today)