রাজবাড়ীর খানখানাপুরে যৌন হয়রানি রোধে অবহিতকরণ সভা অনুষ্ঠিত –

রাজবাড়ী বার্তা ডট কম :

কর্মজীবী কল্যান সংস্থা কেকেএস এর উদ্যোগে আজ সোমবার সকালে রাজবাড়ী সদর উপজেলার খানখানাপুর ইউনিয়নের সুরাজ মোহিনী ইনস্টিটিউট স্কুল এন্ড কলেজ প্রাঙ্গনে পিকেএসএফ এর সহযোগিতায় পরিস্কার পরিচ্ছন্নতা কার্যক্রম ও যৌন হয়রানি রোধে অবহিতকরণ সভা অনুষ্ঠিত হয়।
উক্ত সভার সভাপতিত্ব করেন, কেকেএস এর নির্বাহী পরিচালক বীর মুক্তিযোদ্ধা ফকীর আব্দুল জব্বার। অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন এ.এইচ.এম.এ কাইয়ুম, মহাব্যবস্থাপক (কার্যক্রম), পল্লী কর্ম-সহায়ক ফাউ-েশন (পিকেএসএফ)। অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন মাসুম আল জাকী, উপ-ব্যবস্থাপক (কার্যক্রম), পল্লী কর্ম-সহায়ক ফাউ-েশন (পিকেএসএফ), বীর মুক্তিযোদ্ধা রেজাউল করিম লাল, চেয়ারম্যান, খানখানাপুর ইউনিয়ন পরিষদ ও সহ কমান্ডার জেলা মুক্তিযোদ্ধা সংসদ, রাজবাড়ী, বীর মুক্তিযোদ্ধা নাজিমদ্দিন মিয়া, মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার, খানখানাপুর ইউনিয়ন, মোঃ সিরাজুদ্দিন বিশ^াস, অধ্যক্ষ, সুরাজ মোহিনী ইনস্টিটিউট স্কুল এন্ড কলেজ,খানখানাপুর, হাবিবুর রহমান, সভাপতি, খানখানাপুর ইউনিয়ন আওয়ামীলীগ ও বিশিষ্ট ব্যবসায়ী।
পবিত্র কোরআন তেলাওয়াত এবং গীতা পাঠের মাধ্যমে অনুষ্ঠানের শুরু হয়। অনুষ্ঠানের স্বাগত বক্তব্য রাখেন নব কুমার দত্ত, ১নং ওয়ার্ডের মেম্বার, খানখানাপুর ইউনিয়ন। এরপর বক্তব্য রাখেন জনাব নাজিমদ্দিন মিয়া, মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার, খানখানাপুর ইউনিয়ন। এরপর বিশেষ অতিথির মধ্যে বক্তব্য রাখেন জনাব মাসুম আল জাকী, উপ-ব্যবস্থাপক (কার্যক্রম), পল্লী কর্ম-সহায়ক ফাউ-েশন (পিকেএসএফ)। তিনি বলেন পিকেএসএফ সারা বাংলাদেশে ২০টি ইউনিয়নে আগামী ১বছর পাইলট প্রোগ্রাম হিসেবে পরিস্কার পরিচ্ছন্নতা ও যৌন হয়রানি রোধের কার্যক্রম পরিচালনা করবে। তিনি যৌন হয়রানী ও ইভটিজিং এর প্রভাব, প্রতিরোধ ও শাস্তির বিষয়ে বিস্তারিত আলোচনা করেন এবং প্রজেক্টরের মাধ্যমে এই প্রোগ্রাম কিভাবে সফল হবে তার সচিত্র পরিকল্পনা বর্ননা করেন। এ সময়ে উপস্থিত নারী ও পুরুষের মধ্য থেকে কয়েক জন তাদের মতামত প্রকাশ করেন।
প্রধান অতিথির বক্তব্যে এ.এইচ.এম.এ কাইয়ুম প্রথমে মুক্তিযোদ্ধাদের প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেন। তিনি বলেন টেকসই উন্নতি তখনই সম্ভব যখন আর্থিক উন্নয়নের সাথে সাথে পারিবারিক ও সামাজিক অবক্ষয়ের অবসান হবে। তিনি পাইলট প্রোগ্রামের অংশ হিসেবে খানখানাপুর ইউনিয়নে এই কর্মসূচি সফল করার জন্য সর্বস্তরের মানুষের সহযোগিতা কামনা করেন।
সবশেষে সভাপতির বক্তব্যে বীর মুক্তিযোদ্ধা ফকীর আব্দুল জব্বার বলেন, পরিস্কার পরিচ্ছন্নতা ঈমানের অঙ্গ। নিজেকে এবং নিজের চারপাশকে পরিস্কার পরিচ্ছন্ন রাখার চেষ্টা করতে হবে। আর যৌন হয়রানি এবং ইভটিজিং রোধে প্রথমে কথা দিয়ে প্রতিরোধ করতে হবে, সচেতন করতে হবে অন্যথায় আইনানুগ ব্যবস্থা নিতে হবে।
পরিশেষে মনোজ্ঞ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের মাধ্যমে আয়োজনের সমাপ্তি হয়। অনুষ্ঠানটির পরিকল্পনাকারী ও আয়োজক কেকেএস এর সহকারী নির্বাহী পরিচালক ফকীর জাহিদুল ইসলাম (রুমন)। কর্মসূচি সংগঠকের দায়িত্ব পালন করেন ফয়েজুল হক (কল্লোল)।

(Visited 37 times, 1 visits today)