রাজবাড়ীর আরো এক পুলিশ কনস্টেবলের বিরুদ্ধে মামলা –

রাজবাড়ী বার্তা ডট কম :

মুক্তিযোদ্ধার ভূয়া সার্টিফিকেট দিয়ে চাকুরী গ্রহণ করায় রাজবাড়ী থানায় গতকাল বৃহস্পতিবার দুপুরে মোঃ সাদ্দাম হোসেন নামে আরো এক পুলিশ কনস্টেবলের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করা হয়েছে। সাদ্দাম রাজবাড়ী জেলা শহরের বড়লক্ষিপুর গ্রামের দরবেশ আলী মন্ডলের ছেলে। সে বর্তমানে ঢাকার এসবিতে কর্মরত রয়েছেন। মামলার বাদী হয়েছেন, রাজবাড়ী জেলা পুলিশের রিজার্ভ অফিসার এসআই কবির আহম্মেদ।
মামলা সূত্রে জানাগেছে, বিজ্ঞপ্তি মূলে রাজবাড়ীর পুলিশ লাইনে ২০১০ সালের ২৫ মে মুক্তিযোদ্ধার সন্তান হিসেবে পুলিশ কনস্টেবল পদে চুড়ান্ত ভাবে রিক্রেুাট করা হয় মোঃ সাদ্দাম হোসেনকে। গত ২০১১ সালে প্রথমবারের মতো সাদ্দামের বাবা দরবেশ আলী মন্ডলের মুক্তিযোদ্ধা সনদ যাচাইয়ের জন্য পুলিশ হোডকোয়াটার্সের মাধ্যমে মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রণালয়ে পাঠানো হয়। পরবর্তীতে ২০১৬ সালে পুন:রায় ওই সনদ যাচাই-বাছাই করা হয়। তবে ওই মন্ত্রণালয় থেকে বিগত বছরের শেষ দিকে মুক্তিযোদ্ধা সনদটি জাল হিসেবে উল্লেখ করে তা পত্রের মাধ্যমে পুলিশ হোডকোয়াটার্সকে অবহিত করা হয়। পরে তা ২৭ ডিসেম্বর রাজবাড়ীর রিজার্ভ অফিসে গৃহিত হয়। যার আলোকে গতকাল রাজবাড়ী থানায় সাদ্দামের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করা হয়েছে। সাদ্দামের বিরুদ্ধে পরস্পর যোগসাজসে প্রতারনার মাধ্যমে ভূয়া সার্টফিকেট, মূল সার্টিফিকেট হিসেবে ব্যবহার করে সরকারী চাকুরীতে নিযুক্ত হওয়ার অভিযোগ আনা হয়েছে।
এর আগে বিগত বছরের ২৭ ডিসেম্বর একই অভিযোগে রাজবাড়ী জেলা শহরের বিনোদপুর গ্রামের মোঃ নুরুল ইসলামের ছেলে পুলিশ কনষ্টেবল মোঃ আব্দুল্লাহ আল নোমান আশিক এবং ২০১১ সালের বছরের ১৮ অক্টোবর থানায় রাজবাড়ীর বালিয়াকান্দি উপজেলার দূর্গাপুর গ্রামে নুরুল ইসলাম সেখের পুলিশ কনষ্টেবল ছেলে মোঃ সোহাগ শেখসহ তিন জনের নামে মামলা দায়ের করা হয়। ওই মামলায় পুলিশ কনস্টেবল মোঃ সোহাগ শেখ এবং প্রতারক চক্রের সদস্য একই উপজেলার বাকশিডাঙ্গা গ্রামের আরশাদ আলী সেখের ছেলে বাচ্চু সেখ ও তার সহযোগি আলোকদিয়া গ্রামের গোপাল মন্ডলের ছেলে গোবিন্দ মন্ডলের বিরুদ্ধে গত ২০ মার্চ তিন বছরের সশ্রম কারাদন্ড, ৫ হাজার টাকা জরিমানা এবং অনাদায়ে আরো এক মাসের কারাদন্ড প্রদান করে। বর্তমানে দন্ডপ্রাপ্ত ওই তিন জন কারাগারে রয়েছেন।

(Visited 332 times, 1 visits today)