পুলিশ সুপারের মহতি উদ্যোগ- গরুসহ ঘর পেলেন রাজবাড়ীর হিজড়ারা –

রাজবাড়ী বার্তা ডট কম :

মানুষের দ্বারে দ্বারে ঘুরে, বাচ্চা নাচিয়ে রোজগার হওয়া টাকায় মানবেতর জীবন-যাপন করা হিজড়াদের মান উন্নয়নে মহতি উদ্যোগ নিয়েছে রাজবাড়ী জেলা পুলিশ। ওই উদ্যোগের অংশ হিসেবে এবং হিজড়াদের আতœনির্ভরশীল করতে আজ শুক্রবার সকালে জেলা শহরের মধাব লক্ষিকোল গ্রামে চারটি গরুসহ একটি নবনির্মিত গোয়াল ঘর উদ্বোধন করা হয়েছে। আনুষ্ঠানিক ভাবে ওই ঘর উদ্বোধন করেন, রাজবাড়ীর পুলিশ সুপার আসমা সিদ্দিকা মিলি বিপিএম।
সে সময় রাজবাড়ী থানার ওসি স্বপন কুমার মজুমদার, দাদশী ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সভাপতি রমজান আলী, সাধারণ সম্পাদক জাহাঙ্গীর মিয়াসহ জেলা পুলিশের উদ্ধর্তন কর্মকর্তা ও স্থানীয় নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।
ওই গ্রামের হিজড়া দলনেতা তানিসা ইয়াসমিন চৈতি’র বাড়ীতে ২০ ফুট লম্বা ও ১৪ ফুট চওড়া ওই গরুর ঘরটি নির্মাণ করা হয়েছে। ওই বাড়ীতে আগত হিজড়া বিন্দু ও দুর্গা বলেন, তাদের কেউ কাজে নেয় না। মানুষের দ্বারে দ্বারে ঘুরে নবজাতক নাচিয়ে রোজগার করা টাকায় খেয়ে না খেয়ে তাদের জীবন-যাপন করতে হয়। রাজবাড়ীর পুলিশ সুপার তাদের এই দুর্দশা থেকে রক্ষা করতে এগিয়ে এসেছেন। ইতোমধ্যেই তারা এই ঘরে গরু লালন পালন শুরু করেছেন। এই লালনপালনের মাধ্যমে যে পরিমান রোজগার হবে তাতে তারা দশ জন অবহেলিত হিজরা একটু হলেও সুন্দর জীবন-যাপন করতে পারবেন। তারা এই মহতি উদ্যোগ নেয়া জেলা পুলিশের প্রতি কতৃজ্ঞাও প্রকাশ করেন।
পুলিশ সুপার আসমা সিদ্দিকা মিলি বিপিএম বলেন, ঢাকা রেঞ্জের ডিআইজি হাবিবুর রহমানের নির্দেশনায় তারা রাজবাড়ীতে বসবাসরত হিজড়াদের মান উন্নয়নের উদ্যোগ নিয়েছেন। যার অংশ হিসেবে জেলা শহরের হিজড়াদের দল নেতা চৈতি’র বাড়ীতে একটি গরু রাখার ঘর তৈরী এবং চৈতি ও তার নেতৃত্বে থাকা হিজড়াদের জন্য চারটি গরু প্রদান করা হয়েছে। এই গরু লালন পালন করে তারা স্বাবলম্বি হবে। তাদের এ কার্যক্রম অব্যাহত থাকবে।

(Visited 419 times, 2 visits today)