বালিয়াকান্দিতে ট্রেন দুঘর্টনায় নিহতের স্বজনদের সোয়া লক্ষ টাকা করে প্রদান –

সোহেল রানা, রাজবাড়ী বার্তা ডট কম :

রাজবাড়ীর কালুখালী-ভাটিয়াপাড়া রুটে বালিয়াকান্দিতে ট্রেন ও শ্রমিক টানা ইঞ্জিন চালিত কটাং গাড়ীর সংঘর্ষে জুট মিলের নিহত শ্রমিকদেরকে শনিবার প্রত্যেককে ১লক্ষ ২৫ হাজার টাকা করে প্রদান করা হয়েছে।
বালিয়াকান্দি উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোঃ মাসুম রেজা জানান, ফরিদপুর জেলার মধুখালী উপজেলার চরনওপাড়া গ্রামের আঃ রাজ্জাক খান জুট মিলের কর্তৃপক্ষ শনিবার নিহত শ্রমিকদের প্রত্যেককে ১লক্ষ টাকা করে প্রদান করেছেন। নিহতের সন্তানদের লেখাপড়ার দায়িত্ব ও ভরন পোষনের দায়িত্ব নিয়েছেন রাজ্জাক খান জুট মিল কর্তৃপক্ষ। এছাড়াও জেলা প্রশাসক মোঃ শওকত আলী নিহতদের প্রত্যেককে ২৫ হাজার টাকা করে প্রদান করবেন। এসময় উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোঃ মাসুম রেজা, রাজ্জাক খান জুট মিলের ব্যবস্থাপনা পরিচালক আবুল বাশার খান, জামালপুর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান ইউনুছ আলী খান, বহরপুর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান রেজাউল করিমসহ এলাকার লোকজন উপস্থিত ছিলেন।
উল্লেখ্য, গত শুক্রবার দুপুর পৌনে ১টার দিকে কালুখালী থেকে ছেড়ে আসা ভাটিয়াপাড়াগামী ট্রেন উপজেলার জামালপুর ইউনিয়নের শোলাকুড়া সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সামনে পৌছালে কোন গেটম্যান না থাকায় ফরিদপুর জেলার মধুখালী উপজেলার চরনওপাড়া রাজ্জাক জুট মিলের ইঞ্জিন চালিত শ্রমিক পরিবহনের কটাং গাড়ী প্রবেশ করে। এসময় দুঘর্টনার শিকার হয়। এসময় ঘটনাস্থলেই উপজেলার বহরপুর ইউনিয়নের বাঘুটিয়া গ্রামের শহীদ শেখের ছেলে সরোয়ার শেখ (২০), এলেম সরদারের ছেলে ইমরান সরদার (২২), জামালপুর ইউনিয়নের তুলশীবরাট গ্রামের শুকুর আলী শেখের ছেলে শাকিল শেখ (২০) ও হাসপাতালে ফজলু বিশ্বাস (২৮) নিহত হয়। আহত হয়, জামালপুর ইউনিয়নের আলোকদিয়া গ্রামের হারুন শেখের স্ত্রী পপি খাতুন (৩৫), তুলশীবরাট গ্রামের জহুরুল মিয়া স্ত্রী রাফেজা বেগম (২২), মিঠুন বিশ্বাসের স্ত্রী শেফালী বেগম (২৪), বিল্লাল মন্ডলের স্ত্রী আছিয়া বেগম (২৫)সহ অন্তত ৮জন। আহতদেরকে ফরিদপুর হাসপাতালে চিকিৎসা প্রদান করা হচ্ছে।

(Visited 56 times, 1 visits today)