জেলেরা মারমুখী, নিষেধাজ্ঞা অমান্য করে গোয়ালন্দের পদ্মায় ইলিশ শিকার –

আসজাদ হোসেন আজু, রাজবাড়ী বার্তা ডট কম :

মা ইলিশ শিকার, মজুদ ও বেচা-কেনা নিষেধাজ্ঞা অমান্য করে রাজবাড়ীর গোয়ালন্দ উপজেলার পদ্মা নদী বিভিন্ন এলাকায় ইলিশ শিকার অব্যাহত রেখেছে সংঘবদ্ধ জেলেরা। কখনো কখনো এ সকল জেলেরা অভিযানকারী দলের উপর মারমুখী হয়ে উঠছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে।
শনিবার বেলা ১টার দিকে গোয়ালন্দ উপজেলার দৌলতদিয়া ইউনিয়নের দূর্গম চর কর্ণেশন এলাকায় পদ্মায় ইলিশ শিকার বন্ধে অভিযান চালাতে গিয়ে জেলেদের প্রতিরোধের মুখে পড়ে পুলিশ সহ অভিযানকারীরা। এসময় অভিযানকারীরা পিছু হটে গিয়ে পুনরায় বিপুল সংখ্যক ফোর্স নিয়ে উপজেলা নির্বাহী অফিসার রুবায়েত হায়াত শিপলু ও গোয়ালন্দ ঘাট থানার ওসি এজাজ শফীর নেতৃত্বে অভিযান পরিচালনা করে। তবে তার আগেই সেখান থেকে জেলেরা পালিয়ে যায়। এসময় সেখান থেকে ১ জেলেকে গ্রেফতার, ৫০ হাজার মিটার কারেন্ট জাল ও বেশ কয়েকটি জেলে নৌকা জব্দ করে।
নাম প্রকাশ না করার শর্তে মৎস্য বিভাগের এক কর্মকর্তা জানান, এর আগেও পদ্মায় অভিযান চালাতে গিয়ে সংঘবদ্ধ জেলেদের রোষানলে পড়েন তিনি। স্বল্প ফোর্স নিয়ে তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহন করা তো দুরের কথা বরং তাদের কাছে বিনয়ী হয়ে সেখান থেকে অভিযানকারী দল নিয়ে সসম্মানে ফিরতে পেরেছিলেন।
খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, আগামী ২৮ অক্টোবর পর্যন্ত নদীতে ইলিশ শিকার ও বেচা-কেনা সরকারী ভাবে নিষেধাজ্ঞা থাকলেও গোয়ালন্দ উপজেলা, মানিকগঞ্জের শিবালয় ও পাবনার বেড়া অঞ্চলের জেলেরা পদ্মা-যমুনা নদীতে মাছ শিকার অব্যাহত রেখেছে। তবে এক্ষেত্রে তারা পদ্মার অপেক্ষাকৃত দুর্গম এলাকায় ইলিশ মাছ শিকার করছে। অভিযান দলকে এড়িয়ে যেতে তারা দৌলতদিয়া ও পাটুরিয়া ঘাট এলাকা এড়িয়ে নদীর প্রত্যন্ত চরাঞ্চলে গিয়ে মাছ শিকার করছে। শিকার করা মাছগুলো তারা কেউ কেউ গ্রামাঞ্চলে ঘুরে ঘুরে বিক্রি করছেন। আবার বিভিন্ন উপায় কেউ কেউ সংরক্ষণও করছেন।
নিষেধাজ্ঞাকালীন সময়ে নিরাপদে ইলিশ শিকারের জন্য এক শ্রেণির জেলেরা গোয়ালন্দ উপজেলার অন্তত দু’টি দুর্গম স্থানে মোটা টাকা খচর করে বিশেষ আয়োজন করেছে। সেখানে তারা নির্বিঘেœ নৌকা-জাল রাখা সহ ক্রয় বিক্রয়ের ব্যবস্থাও করেছে। যেখানে নির্বিঘেœ অন্তত শতাধিক জেলে নৌকা লুকিয়ে রাখা সম্ভব বলে বিভিন্ন সূত্র জানায়। সেখান থেকে সময় সুযোগ মত তারা নদীতে ইলিশ শিকার করে থাকে। এ রকম একটি স্থানেই শনিবার পুলিশ উপস্থিত হলে ওই সকল জেলেদের রোষানলে পড়ে।
গোয়ালন্দ ঘাট থানার ওসি এজাজ শফী জানান, শনিবার পদ্মাপাড়ের একটি স্থানে সীমিত ফোর্স নিয়ে অভিযানে গেলে সেখানে বিপুল সংখ্যক জেলে দেখে অনাকাঙ্খিত ঘটনা এড়াতে পুলিশ পিছু হটে। দ্রুত সময়ের মধ্যে সেখানে অতিরিক্ত ফোর্স নিয়ে অভিযান পরিচালনা করা হয়। তবে বেশীর ভাগ দূর্বৃত্ত সেখান থেকে পালিয়ে গেছে।
গোয়ালন্দ উপজেলা নির্বাহী অফিসার রুবায়েত হায়াত শিপলু জানান, বিপুল সংখ্যক দুর্বৃত্ত পদ্মায় ইলিশ শিকারের চেষ্টা করছে এমন খবরে তিনিসহ অভিযান পরিচালনা করা হয়। সেখান থেকে আটক এক জেলেকে ১৫দিনের কারাদন্ড ও ৫০ হাজার মিটার কারেন্ট জাল উদ্ধার করা হয়। এসময় বেশ কয়েকটি জেলে নৌকা ধ্বংস করে দেয়া হয়।

(Visited 105 times, 1 visits today)