ইলিশ রক্ষা অভিযানের ৪র্থ দিনে রাজবাড়ীতে ১৭ জন জেলেকে বিভিন্ন মেয়াদে কারাদন্ড –

রাজবাড়ী বার্তা ডট কম :

চলমান মা ইলিশ রক্ষা অভিযানের ৪র্থ দিন আজ বুধবার রাজবাড়ী সদর উপজেলা ও পাংশা উপজেলার পদ্মা নদীতে অভিযান চালিয়ে ১১ জেলেকে বিভিন্ন মেয়াদে কারাদন্ড দিয়েছে ভ্রাম্যমান আদালত। সেই সাথে ২০ কেজি মা ইলিশ এবং ৩৯ হাজার মিটার কারেন্ট জাল উদ্ধার করেছে। এদিকে নদীতে জেলেরা যেন মাছ ধরতে না পারে সে জন্য জেলা প্রশাসন ও জেলা মৎস্য অধিদপ্তর তৎপরতা বৃদ্ধি করেছে।
জেলা মৎস অধিদপ্তর সুত্রে জানাগেছে, রাজবাড়ী সদর উপজেলা, কালুখালী ও পাংশার পদ্মা নদীতে পৃথক অভিযান চালিয়ে আটককৃতদের মধ্যে ভ্রাম্যমান আদালতের মাধ্যমে ১৮ জনকে ২০দিন, ৩ জনকে ৭ দিন করে কারাদন্ড ও ১ জনকে ৫ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়।
মা ইলিশ রক্ষায় ৭ অক্টোবর থেকে ২৮ অক্টোবর পর্যন্ত এ ২২ দিন ইলিশ ধরা বন্ধে জেলা প্রশাসন ও মৎস্য অধিদপ্তর তাদের কার্যক্রম চালিয়ে যাচ্ছে। মঙ্গলবার রাতে পদœায় এ অভিযানে জেলা প্রশাসন ও জেলা মৎস্য অধিদপ্তর তাদের অভিযান পরিচালনা করে ৮ জন জেলে ৫ হাজার মিটার কারেন্ট জাল ও ১০ কেজি মা ইলিশ জব্দ করা হয়।
বুধবার সকালে রাজবাড়ী সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো সাইদুজ্জামান খান ভ্রাম্যমান আদালত পরিচালনা করে সরকারী আদেশ অমান্য করায় দন্ডবিধি (১৮৮) ধারায় ৮ জেলেকে ২০ দিন করে কারাদন্ড প্রদান করে এবং ৫ হাজার মিটার কারেন্ট জাল পোড়ানো হয় পরে জব্দকৃত ইলিশ মাছ এতিম খানায় বিতরণ করা হয়।
এদিকে পাংশা উপজেলার পদ্মা নদীতে আলাদা অভিযান পরিচালনা করে ৩ জেলেকে আটক করা হয়। পাংশা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোঃ রফিকুল ইসলাম পৃথক ভাবে ভ্রাম্যমান আদালত পরিচালনা করে ৩ জেলেকে ৭ দিন করে কারাদন্ড প্রদান করে সেই সাথে ৪ হাজার মিটার কারেন্ট জাল পুড়িয়ে ধ্বংস করা হয়।
জেলার কালুখালী উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভুমি) সাদিয়া ইসলাম লুনা জানান, তার নেতৃত্বে হওয়া ভ্রাম্যমান আদালত পদ্মা নদীর কালুখালী উপজেলার অংশ থেকে ৭ জনকে আটক, ৩০ হাজার মিটার কারেন্ট জাল ও ১০ কেজি মাছ উদ্ধার করে। পরে ৬ জনকে ২০ দিন করে কারাদন্ড এবং ১ জনকে ৫ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়।

(Visited 92 times, 1 visits today)