নিষেধাজ্ঞাকালীন সময়ে নদীতে গেলেই শাস্তি – রাজবাড়ীর ডিসি –

আজু শিকদার, রাজবাড়ী বার্তা ডট কম :

নিষেধাজ্ঞাকালীন সময়ে গত বছর আমাকে অনেক জেলেকে শাস্তি দিতে হয়েছে। তখন জেলেদের কোন খাদ্য সহায়তা দিতে পারি নাই। শাস্তি দিতে গিয়েও মানবিক কারণে অনেক ক্ষেত্রে শাস্তি কমিয়ে দিয়েছি। আমি উপর মহলে তদবির করেছি, বলেছি জেলেদের ঘরে খাবার নেই, তাদের খাদ্য সহায়তা দিতে না পারলে তারা নদীতে মাছ ধরার চেষ্টা করবেই। এই তদবিরের কারণে সরকার এ বছর এ জেলা নিষেধাজ্ঞাকালীন সময়ে জেলেদের খাদ্য সহায়তার ব্যবস্থা করেছে। তাই এবছর নদীতে কাউকে পাওয়া গেলে কোন মানবিকতা দেখানো হবে না। সরকারী আদেশ তথা আমাদের অনুরোধ উপেক্ষা করে যদি কেউ ইলিশ শিকারে লিপ্ত হয় তাদের বিরুদ্ধে কঠিন ব্যবস্থা নেয়া হবে। নদীতে মাছ শিকার করুক আর না করুক কোন জেলে নৌকা যদি নদীতে পাওয়া যায় তা জব্দ করা হবে।
নিষেধাজ্ঞাকালীন সময়ে পদ্মায় জেলেদের মা ইলিশ আহরণ থেকে বিরত রাখতে গোয়ালন্দে সোমবার বিকেলে জেলেদের জন্য বিশেষ ভিজিএফ খাদ্যশস্য (চাউল) বিতরণ অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে রাজবাড়ী জেলা প্রশাসক মো. শওকত আলী এসব কথা বলেন।
তিনি আরো বলেন, ৩৬৫ দিনের মধ্যে মাত্র ২২ দিন আপনাদের মাছ শিকারে নিষেধাজ্ঞা দিয়েছে সরকার। দেশ-জাতি তথা আপনাদের মঙ্গলের জন্যই সরকার এ সিদ্ধান্ত নিয়েছেন। সারা বছর নদীতে মাছ পাওয়া গেলে আপনারাই ভালো থাকবেন। তাহলে মাত্র এই কয়টি দিন কেন আপনারা ধর্য্য ধরবেন না। আজ আমি আপনাদের অনুরোধ করছি, আশাকরি আপনারা আমার অনুরোধ আমলে নিবেন। তা নাহলে কঠিন শাস্তির মুখোমুখি হতে হবে।
উপজেলার দেবগ্রাম ইউনিয়নের আতর আলী চেয়ারম্যানের বাজারে জেলেদের সচেতনতা বৃদ্ধির লক্ষ্যে আলোচনা সভা শেষে উপস্থিত জেলেদের মাঝে ২০ কেজি করে চাউল বিতরণ করা হয়। এরপর উপজেলার উজানচর ইউনিয়ন পরিষদ চত্ত্বরে ওই ইউনিয়নের জেলেদের সাথে মতবিনিময় ও চাউল বিতরণ করা হয়। এ কর্মসূচীর আওতায় গোয়ালন্দ উপজেলার পদ্মা নদীতে ইলিশ শিকারে সম্পৃক্ত ১হাজার ৬শত ২৭ টি জেলে পরিবারের মাঝে এ চাউল বিতরণ করা হবে।
এতে গোয়ালন্দ উপজেলা নির্বাহী অফিসার রুবায়েত হায়াত শিপলুর সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন রাজবাড়ী জেলা প্রশাসক মো. শওকত আলী। এসময় অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন, রাজবাড়ী জেলা মৎস্য কর্মকর্তা মজিনুর রহমান, উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান এবিএম নুরুল ইসলাম, দেবগ্রাম ইউনিয়নের চেয়ারম্যান আতর আলী সরদার, উপজেলা মৎস্য কর্মকর্তা রেজাউল শরীফ প্রমুখ।
উল্লেখ্য, আগামী ২৮ অক্টোবর পর্যন্ত মোট ২২ দিন পদ্মায় ইলিশ ধরা নিষিদ্ধ থাকবে।

(Visited 27 times, 1 visits today)