রাজবাড়ী নাসিং ইনষ্টিটিউটের অফিস সহকারী রফিকের বিরুদ্ধে ছাত্রী যৌন হয়রানির অভিযোগ –

রুবেলুর,ইমরান,আতিয়ার,  রাজবাড়ী বার্তা ডট কম :

রাজবাড়ী আধুনিকৃত সদর হাসপতালের মধ্যে অবস্থিত নাসিং ইনষ্টিটিউটের অফিস সহকারী মোঃ রফিকুল ইসলামের বিরুদ্ধে ইনষ্টিটিউটের ছাত্রী যৌন হয়রানির অভিযোগ পাওয়া গেছে।
রোববার দুপুর আড়াইটার দিকে ইনষ্টিটিউটের ছাত্রীরা লম্পট ওই রফিকুল ইসলামকে অবরুদ্ধ করে উত্তম মাধ্যম দেন এবং জুতার মালা পড়ান গলায়।
এসময় রাজবাড়ীর সদর থানার পুলিশ গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে।
নাসিং ইনষ্টিটিউটের ছাত্রীরা জানান, তাদের ইনষ্টিটিউটের একটি ছাত্রীর নাম ও তার ছবি দিয়ে ফেসবুক আইডি খুলে দীর্ঘদিন বিভিন্ন ছাত্রীর সাথে সু-কৌশলে চ্যাটিং (ম্যাসেজ) এর মাধ্যমে কথা বলতেন। এসময় সে অনেক আপত্তিকর ভাষা ও আজে বাজে কথা বলতেন। হঠাৎ তারা বিষয়টি টের পেয়ে এবং এর সাথে তার সংশ্লিষ্ঠতা পাওয়ায় তাকে অবরুদ্ধ করেন। এক পর্যায়ে তাদের মধ্যে থেকে উত্তেজিত কিছু ছাত্রী ওই লম্পটকে চর থাপ্পর মারেন। ছাত্রীরা ওই লম্পটকে ইনষ্টিটিউট থেকে প্রত্যাহার ও দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবী করেন।
তারা আরো জানান, তাদের স্টাইফিন (উপবৃত্তি) দেওয়া হয় বছরে তিনবার, সেখান থেকেও বিভিন্ন অংকের টাকা কেটে রাখেন রফিকুল ও হাউজ কিপার নিলুফা জাহান। প্রতিবাদ করলেই ভয় দেখায় বিভিন্ন কারণ দেখিয়ে। এছাড়া ইনষ্টিটিউটের হাউজ কিপার নিলুফা জাহানের বিরুদ্ধেও রয়েছে বাজার ও মিলের টাকা আত্মসাৎতের অভিযোগ। মাসের প্রথমে মিলের টাকা জমা নিলেও মাসের মাঝে আবার টাকা নেন এবং কোন ছাত্রী বাসায় গেলে তার মিল বন্ধ থাকে। কিন্তু মাস শেষে হিসাব করে টাকা বাঁচলে সে টাকা কখনও ফেরত দেন না।
এ সময় উপস্থিত ছিলেন, রাজবাড়ী আধুনিকৃত সদর হাসপতালের তত্তাবধায়ক ডাঃ স্বপন কুমার কুন্ডু, হাসপাতালের কর্মকর্তা-কর্মচারী, রাজবাড়ী সদর থানার এসআই মোঃ এনছের আলী, ইনষ্টিটিউটের কর্মকর্তা ও ছাত্রীরা ।
রাজবাড়ীর সিভিল সার্জন ডাঃ মোঃ রহিম বকস জানান, হাসপতালের মধ্যে অবস্থিত নাসিং ইনষ্টিটিউটের অফিস সহকারী মোঃ রফিকুল ইসলামের বিরুদ্ধে যে অভিযোগ উঠেছে সেটি তদন্তপূর্বক ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

(Visited 894 times, 1 visits today)