ঘটনাস্থল : রাজবাড়ীর জনতা ব্যাংক, খোয়া গেল শিক্ষিকার এক বছরের বেতন ! –

রাজবাড়ী বার্তা ডট কম :

সারা বছরের বেতন-ভাতা ব্যাংক একাউন্টে জমা হবার পর তা তুলতে গিয়ে পুরো টাকাই খুইয়ে ফেলেছেন নীলা সূত্রধর নামে এক নারী শিক্ষক। আর টাকা খুইয়ে বিধবা ওই শিক্ষক করছেন এখন আহাজারী। আজ রবিবার দুপুরে জনতা ব্যাংক রাজবাড়ী শাখায় এ ঘটনা ঘটেছে।
জানাগেছে, জেলার কালুখালী উপজেলার কালিকাপুর ইউনিয়নের শ্যামলাবাড়ী গ্রামের মৃত সঞ্জয় দত্তের স্ত্রী এবং মন্দির ভিত্তিক গণশিক্ষা কর্মসূচীর আওতাধিন দক্ষিণ মৌকুরী শ্যামলাবাড়ী কালি মন্দির কেন্দ্রের শিক্ষক নীলা সূত্রধর গতকাল বেলা ১২টার দিকে রাজবাড়ী বাজারের মুক্তিযোদ্ধা কমপ্লেক্সে থাকা জনতা ব্যাংকে যান। তিনি ওই ব্যাংকে প্রবেশ করার পর তার নিজ একাউন্টে থাকা সারা বছরের বেতন-ভাতা বাবদ ৪৯ হাজার ২শত টাকা উত্তোলনের জন্য চেক বই বের করেন। সে সময় ভদ্রবেশি এক প্রতারক তার কাছে এগিয়ে আসেন এবং তাকে চেক লেখায় সহযোগিতা করেন। তিনি সরল বিশ^াসে স্বাক্ষর করে চেকটি ব্যাংকের একাউটেন্টের কাছে পৌছানোর জন্য ওই লোকের হাতে তুলে দেন। তবে ভিড়ের মধ্যে লোকটি কখন টাকা তুলে চলে গেছেন তা তিনি টেরও পাননি। যখন তিনি টের পেলেন তখন অনেক দেরি হয়ে গেছে, লোকটির নেই তখন কোন খোঁজ।
শিক্ষক নীলা সূত্রধর বলেন, তিনি অত্যান্ত দরিদ্র একজন মানুষ। স্বামী হারা হওয়ায় নিজের উপার্জনের উপরই ভরসা করতে হয় তার। সারা বছর চাকুরী করেছেন। তবে তাদের চাকুরীতে দেয়া হয়না প্রতিমাসে বেতন। তাই চেয়ে চিন্তে-ধার-দেনা হয়ে সংসার চালান তিনি। সাম্প্রতিক সময়ে তার জনতা ব্যাংকের একাউন্টে এক বছরের বেতন এবং সামান্য কিছু গাড়ী ভাড়া বাবদ আসা ৪৯ হাজার ২শত টাকা জমা হয়। ওই টাকা তুলতে তিনি ব্যাংকে আসেন। চেক বই বের করার পর ওই লোক তার কাছে আসে এবং চেক লেখায় সহযোগিতা করেন। এক পর্যায়ে তাকে বসতে বলে লোকটি চেকটি ব্যাংকের একউটেন্টের কাছে জমা দিতে নিয়ে যান। এর কিছু সময় পর তিনি লক্ষ করেন লোকটি নেই। খোঁজ নিয়ে দেখেন লোকটি টাকা তুলে তা নিয়ে চম্পট দিয়েছেন। ফলে তিনি কান্নায় ভেঙ্গে পরেন। এখন কিভাবে দেনা শোধ করবেন এবং আগামী এক বছর সংসার চালাবেন তা ভেবে পাচ্ছেন না।
ব্যাংকের ম্যানেজার মাঞ্জুর রহমান জানান, সিসি ক্যামেরার ধারণকৃত ভিডিওতে দেখা গেছে মাত্র ১২ মিনিটের মধ্যে ওই প্রতারক টাকা তুলে চলে গেছে। ওই ব্যক্তি চেকের পেছনে “হান্নান” নাম লিখে স্বাক্ষর করেছে। ফলে লোকটি বৈধভাবে ব্যাংক থেকে টাকাটা তুলেছেন। যে কারণে তাদের কিছু করা বা বলার নেই।

(Visited 529 times, 1 visits today)