রাজবাড়ীতে ঠান্ডু হত্যা মামলায় ছেলের ফাঁসি বাবার যাবজ্জীবন কারাদন্ড –

রাজবাড়ী বার্তা ডট কম :

পাঁচ বছর পূর্বে রাজবাড়ী সদর উপজেলার রামকান্তুপুর ইউনিয়নের বেথুলিয়া ডাঙ্গীপাড়া গ্রামে প্রতিপক্ষের ধারালো অস্ত্রের আঘাতে নিহত ঠান্ডু সেখ হত্যা মামলায় রায় মঙ্গলবার সকালে প্রদান করা হয়েছে। ওই রায়ে প্রধান আসামি রবিউল সরদারকে ফাঁসি এবং রবিউলের বাবা মিনহাজ সরদারকে যাবজ্জীবন কারাদন্ড প্রদান করেছেন। সেই সাথে এ মামলার আরো চার জন আসামিকে আদালত খালাশ প্রদান করেছেন।
মামলা সূত্রে জানাগেছে, ২০১৩ সালের ১২ মে সকালে ওই গ্রামের মিনহাজ উদ্দিন সরদারের বাড়ীর একটি ছাগল নিহত ঠান্টুদের পাট ক্ষেত ও একটি মেহগনি গাছের তিনটি পাতা খেয়ে ফেলে। সে সময় প্রতিবেশি উভয় পরিবারের সদস্যদের কথাকাটাকাটি হয়। এ নিয়ে ওই দিন রাত সাড়ে ৮ টার দিকে ঠান্টুর চাচাতো ভাই আব্দুর রশিদের দোকানের সামনে গ্রাম্য সালিশের আয়োজন করা হয়। সে সময় মিনহাজ উদ্দিন সরদার ওই সালিশের আগতদের জানান, সালিশ আজকে হবে না, আগামী কাল হবে। সে সময় ঠান্টুদের সাথে শুরু হয় বচসা। এক পর্যায়ে মিনহাজ ও তার দু’ছেলে রবিউল সরদার ও খোরশেদ আলী সরদার বাড়ী থেকে ধারালো অস্ত্র নিয়ে এসে ঠান্টু ও তার বড় ভাই লিটনকে কুপিয়ে মারাতœভাবে আহত করে পালিয়ে যায়। পরে গুরুতর অবস্থায় দু’ভাইকেই রাজবাড়ী সদর হাসপাতালে নিয়ে গেলে চিকিৎসক ঠান্ডুকে মৃত ঘোষনা করা হয়। ওই ঘটনায় ঠান্ডুর আহত ভাই লিটন সেখ বাদী হয়ে প্রতিবেশি মিনহাজ উদ্দিন, তার দুই ছেলে রবিউল সরদার, খোরশেদ আলী সরদার, বেনিয়া বেগম, দেলোয়ার হোসেন দেলু ও পলি খাতুনকে আসামী করে রাজবাড়ী থানায় একটি মামলা দায়ের করেন। মামলাটির দ্বিতীয়তম তদন্তকারী কর্মকর্তা হিসেবে রাজবাড়ী থানার তৎকালিন এসআই গাজী মাহবুবুর রহমান ২০১৪ সালের ২ জুলাই ওই ছয় জনের বিরুদ্ধেই আদালতে চার্জশীট প্রদান করেন।
রাজবাড়ীর পাবলিক প্রসিকিউটর (পিপি) উজির আলী সেখ বলেন, ২১ জন স্বাক্ষির স্বাক্ষ গ্রহণ শেষে আসামিদের উপস্থিতিতে জেলা ও দায়রা জজ মোঃ আমিনুল হক-এর আদালত প্রধান আসামি রবিউল সরদারকে ফাঁসি এবং রবিউলের বাবা মিনহাজ সরদারকে যাবজ্জীবন কারাদন্ড প্রদান করেছেন, সেই সাথে তাকে ২০ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়েছে, অনাদায়ে আরো তিন মাসের কারাদন্ড প্রদান করেন। অন্যা চার জন আসামিকে খালাশ প্রদার করে।

(Visited 837 times, 1 visits today)