রাজবাড়ীতে দু’গ্রুপের সংঘর্ষে ইউপি মেম্বারসহ আহত ৬, ১৫ ঘর ও দোকান ভাংচুর-

রাজবাড়ী বার্তা ডট কম :

পূর্ব বিরোধের জের ধরে রাজবাড়ী সদর উপজেলার মিজানপুর ইউনিয়নের চর নারায়নপুর গ্রামে দুই গ্রুপের সংঘর্ষে ইউপি মেম্বারসহ ৬ জন আহত হয়েছে। সেই সাথে ওই এলাকার ১৫টি বাড়ীর ঘর ও দোকানপাট ভাংচুর করা হয়েছে। এ ঘটনায়  মঙ্গলবার দুপুরে এক গ্রুপের পক্ষ থেকে প্রতিপক্ষের ১৬ জনকে চিহ্নিত করে এবং আরো ৫/৬ জন অজ্ঞাত আসামির বিরুদ্ধে রাজবাড়ী থানায় একটি মামলা দায়ের করা হয়েছে।
স্থানীয়রা জানান, গত সোমবার দুপুরে স্থানীয় প্রভাবশালী তালেব মন্ডলের ছেলে জাহিদুল ইসলাম ও তার সহযোগি সাব্বির মন্ডল মোটরসাইকেল যোগে একই ইউনিয়নের বেনিনগর স্কুলের সামনে যায়। সে সময় পূর্ব বিরোধের জের ধরে ওই এলাকার রাশেদ ও রুবেল নামক দুই যুবক তাদের আটক করে। সেই সাথে মোটরসাইকেলটি ভাংচুরের পাশাপাশি তাদের বেধড়ক মারপিটের পর আটক করে রাখে। খবর পেয়ে জাহিদুল ইসলাম ও সাব্বির মন্ডলের স্বজনরা ঘটনা স্থলে যান। এতে করে উভয় পক্ষে মধ্যে সংঘর্ষ বেঁধে যায়। সংঘর্ষে ওই ইউনিয়নের ৬নং ওয়ার্ড ইউপি সদস্য মোঃ কোরবান হোসেন মোল্লা ৬নং ওয়ার্ড ইউপি সদস্য মোঃ কোরবান হোসেন মোল্লা, সোহাগ, শিপন, হাসানসহ ৬ জন আহত হয়। মারাতœক আহত অবস্থায় শিপনকে ফরিদপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। সেই সময় ভাংচুর করা হয় কোরবান মেম্বারের বাড়ীর ঘরসহ ১২টি ঘর ও ৩টি দোকান।
মিজানপুর ইউনিয়নের ৬নং ওয়ার্ড ইউপি সদস্য মোঃ কোরবান হোসেন মোল্লা জানান, বেশ কিছু দিন আগে ছোট শিশুদের খেলাকে কেন্দ্র করে বিরোধের সৃষ্টি হয়। স্থানীয় ভাবে ওই বিরোধ মিমাংশাও করা হয়। তারপরও দেশীয় অস্ত্র নিয়ে অনাকাংখিত এই হামলা ও ভাংচুরের ঘটনা ঘটানো হয়েছে।
মিজানপুর ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান মোঃ আতিয়ার রহমান জানান, পূর্ব বিরোধের জের ধরেই দুই গ্রুপের মধ্যে মারপিট ও ভাংচুরের ঘটনা ঘটেছে।
রাজবাড়ী থানার এসআই তারিক কামাল জানান, ওই সংঘর্ষের ঘটনার পর থানা পুলিশের সদস্যরা সেখানে গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে আনে। এ ঘটনায় লিটন বিশ^াস বাদী হয়ে ১৬ জনকে চিহ্নিত করে এবং আরো ৫/৬ জন অজ্ঞাত আসামির বিরুদ্ধে রাজবাড়ী থানায় একটি মামলা দায়ের করেছে।

(Visited 817 times, 1 visits today)