গোয়ালন্দের আনন্দ গ্রেপ্তার, হুমকীতে রাজবাড়ীর কসবামাজাইলের চেয়ারম্যান ! –

রাজবাড়ী বার্তা ডট কম :

 

রাজবাড়ীর পাংশা উপজেলার কসবামাজাইল ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান ও উপজেলা আ.লীগের সদস্য মোঃ কামরুজ্জামান জীবন নাশের আশংস্কার মধ্যে দিন অতিবাহিত করছেন বলে দাবী করেছেন। যার অংশ হিসেবে গত বৃহস্পতিবার রাতেও তার বাড়ীর পাশ থেকে অপরিচিত দুই ব্যক্তিকে আটক করা হয়েছে। তবে এক জন কৌশলে পালিয়ে যেতে পারলেও আরেকজনকে থানা পুলিশে সোর্পদ করা হয়েছে।
ইউপি চেয়ারম্যান কামরুজ্জামান জানান, তিনি ইউপি চেয়ারম্যান নির্বাচিত হবার পর থেকেই প্রতিপক্ষের লোকজন তাকে হুমকী-ধামকী প্রদান করে আসছে। মাত্র ৩ মাস আগে গভীর রাতে তার বাড়ীর খড়ের গাদা, লাকরীর গাদাসহ তিনটি স্থানে আগুন ধরিয়ে দেয়। সে সময় ওই অগ্নিকান্ডের বিষয়টি টের পাওয়ায় এলাকাবাসীর সহযোগিতায় তারা আগুন নেভাতে সক্ষম হন। যে কারণে আগুন পুরোবাড়ীতে আর ছড়াতে পারেনি। ওই ঘটনার পর তিনি পাংশা থানায় সাধারণ ডায়রীও করেন। এরই মাঝে গত বৃহস্পতিবার রাত সাড়ে ১১টার দিকে দুই যুবককে তার বাড়ীসহ আশপাশ এলাকায় ঘোড়াঘুড়ি করতে দেখা যায়। সে সময় স্থানীয়রা জেলার গোয়ালন্দ উপজেলার তেজেম আলী মন্ডলের ছেলে আনন্দ আলী মন্ডল (৪৭) ও পাংশা উপজেলার বাবুপাড়া ইউনিয়নের হাজরাপাড়া গ্রামের জনৈক জিয়া নামে এক ব্যাক্তি আটক করে। সে সময় কৌশলে জিয়া পালিয়ে যেতে সক্ষম হলেও আনন্দ আলী মন্ডলকে আটক করা হয়।
তিনি আরো বলেন, প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে আনন্দ আলী মন্ডল তাদের জানিয়েছে, সিরাজ নামক কতিপয় ব্যক্তির কাছে সে কিছু টাকা পায়। ওই সিরাজ তাকে প্রায় ৪০ কিলো মিটার দুরে থেকে আনন্দকে পাংশার বাবুপাড়া এলাকায় ডেকে আনে এবং বলে বকেয়া টাকা ছাড়াও আরো পাঁচ হাজার টাকা সে তাকে প্রদান করবে। তবে আনন্দকে একটা “অকারেন্স” করতে হবে। যে কারণে বাবুপাড়া এলাকার জিয়ার সাথে তাকে এই চেয়ারম্যানের বাড়ীর এলাকায় পাঠানো হয়েছে।
পাংশা থানার ওসি মোফাজ্জেল হোসেন জানান, আনন্দ আলী মন্ডলকে চোর সন্দেহে গ্রেপ্তার করা হয়েছে।

(Visited 443 times, 1 visits today)