দৌলতদিয়া পতিতাপল্লী কেন্দ্রীক শক্তিশালী নারী পাচারকারী গ্রুপ রয়েছে- রাজবাড়ীর এসপি আসমা সিদ্দিকা মিলি-

রাজবাড়ী বার্তা ডট কম :

রাজবাড়ীতে সদ্য যোগদানকৃত পুলিশ সুপার আসমা সিদ্দিকা মিলি বিপিএম বলেছেন, রাজবাড়ীর দৌলতদিয়া ঘাট এলাকায় শক্তিশালি চাঁদাবাজ গ্রুপ রয়েছে। ওই গ্রুপকে ভাঙ্গা সহজ কাজ নয়। পুলিশের পাশাপাশি অন্যান্য প্রতিষ্ঠানের সহযোগিতা প্রয়োজন। আর তা না হলে চাঁদাবাজী বন্ধ করা সম্ভব নয়। তিনি গত ৫ মার্চ রাজবাড়ীতে যোগদান করেছেন। রাজবাড়ীর দু’টি প্রধান সমস্যা ইতোমধ্যেই তিনি চিহ্নত করেছেন। তা হলো মাদক ও দৌলতদিয়া ঘাট। আজ রবিবার থেকে মাদক ও সন্ত্রাসী নিমূলে বিশেষ অভিযান জেলার ৫টি থানা এলাকায় পরিচালনা করা হবে। দৌলতদিয়া ঘাটে রয়েছে ব্যাপক কর্মযজ্ঞ। সেখানে ফেরী স্বল্পতাসহ নানা রকম সমস্যা রয়েছে। সেই সাথে দৌলতদিয়া ঘাটে অনেক বড় একটি চক্র রয়েছে। এ জেলায় বিপ্লব ঘটাতে না পারলেও তিনি সব কিছু নিয়ন্ত্রণে রাখার প্রত্যয় ব্যক্ত করেন। তিনি আরো বলেন, বোয়াল মাছ ধরতে হলে শক্ত জাল লাগবে। ফলে আমাকে সময় দিতে হবে। দৌলতদিয়া পতিতা পল্লী কেন্দ্রীক শক্তিশালী নারী পাচারকারী গ্রুপ রয়েছে। ফলে রাজধানী ঢাকার আইনজীবি সমিতির সহযোগিতায় এ পতিতাপল্লী থেকে নারী উদ্ধার ও তাদের আইনগত সহায়তা প্রদানের চেষ্টা করা হবে। ভিকটিম সাপোর্ট সেন্টার তৈরীর চেষ্টা করা হবে। নারী ও শিশু নির্যাতনকারীদের কোন রুপ ছাড় দেয়া হবে না। কমিউনিটি পুলিশিং কার্যক্রম আরো বেগবান করা হবে।

আজ শনিবার দুপুরে পুলিশ সুপারের সম্মেলন কক্ষে অনুষ্ঠিত জেলার ইলেকট্রনিক, প্রিন্ট ও অনলাইন মিডিয়ার সাংবাদিকদের মতবিনিময় সভা। ওই সভায় তিনি এ সব কথা বলেন।
সভায় রাজবাড়ীর অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মোহাম্মদ রাকিব খান, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (সদর সার্কেল) মোঃ রেজাউল করিম, সদর থানার ওসি তারিক কামাল, রাজবাড়ী প্রেসক্লাবের সভাপতি এ্যাডঃ খান মোঃ জহুরুল হক, সাংবাদিক মোঃ সানাউল্লাহ, খন্দকার আব্দুল মতিন, কাজী আব্দুল কুদ্দুস, জাহাঙ্গীর হোসেন, শহিদুল ইসলাম, এজাজ আহম্মেদ, সৌমিত্র শীল চন্দন, শফিকুল ইসলাম শামিম, সুমন বিশ^াস প্রমূখ বক্তৃতা করেন।

(Visited 535 times, 1 visits today)