বালিয়াকান্দি উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স নানা সমস্যায় জর্জরিত –

সোহেল রানা, রাজবাড়ী বার্তা ডট কম :

রাজবাড়ীর বালিয়াকান্দি উপজেলার ৭টি ইউনিয়নের মানুষের একমাত্র স্বাস্থ্য সেবার ভরসাস্থল উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স। এ স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সটি নানা সমস্যায় জর্জরিত হয়ে পড়েছে। দ্রুত সমস্যা সমাধানে প্রশাসনের হস্তক্ষেপ কামনা করেছে এলাকাবাসী।
উপজেলা স্বাস্থ্য বিভাগ সুত্রে জানাগেছে, উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের এক্স-রে মেশিন প্রায় ১০ বছর রয়েছে বিকল। ফলে হাসপাতালে চিকিৎসা নিতে আসা রোগীদেরকে এক্স-রে করতে যেতে হয় পার্শ্ববর্তী ক্লিনিক, ডায়াগনষ্টিক সেন্টারে। হাসপাতাল অনুসারে ৫ কেভির জেনারেটর প্রয়োজন থাকলেও বরাদ্দ দেওয়া হয়েছে ৪০ কেভি জেনারেটর। ব্যায় নির্বাহের কারণে এ জেনারেটরটি আজও সচল হয়নি। অপারেশন থিয়েটার চালু থাকলেও নেই কোন বিশেষজ্ঞ সার্জন। নানা সমস্যা থাকলেও জুনিয়র কনসালটেন্ট (গাইনী), জুনিয়র কনসালটেন্ট (মেডিসিন), জুনিয়র কনসালটেন্ট (সার্জারী), এ্যান্সেথেশিয়া ও মেডিকেল অফিসার, ডেন্টাল সার্জন পদ দীর্ঘদিন শুন্য রয়েছে। মেডিকেল অফিসার ১০ জনের মধ্যে রয়েছে ৭জন, জুনিয়র কনসালটেন্ট ৫জনের মধ্যে একজনের পদায়ন হলেও উচ্চ শিক্ষার জন্য চলে যাচ্ছেন। তৃতীয় ও চতুর্থ শ্রেণীর কর্মচারীদের ১৫৯টি পদ থাকলেও শুন্য রয়েছে ৩৭টি। এমএলএসএস পদে ৫টি পদই শুন্য রয়েছে। আয়া ও পরিচ্ছন্নতা কর্মী সংখ্যা কম থাকায় প্রতিনিয়তই পরিচ্ছন্নতার ঘাটতি থাকে। বিশেষজ্ঞ ডাক্তার না থাকার ফলে গর্ভবতী মায়েরা, বড় ধরণের অপারেশন করতে না পারার কারণে ঝুকিপুর্ন রোগী আসলেই তাদেরকে রিফার্ড করতে হয় রাজবাড়ী অথবা ফরিদপুর হাসপাতালে। জরুরী বিভাগ চালু থাকলেও নেই কোন মেডিকেল অফিসার। ২০১১ সালে ৩১ শর্য্যা বিশিষ্ট হাসপাতাল থেকে ৫০ শর্য্যা বিশিষ্ট হাসপাতালে উন্নীতকরণ করা হলেও তার কোন জনবল ও উপকরণ প্রদান করা হয়নি। শুধুমাত্র অবকাঠামোগত উন্নয়ন হয়েছে। বর্তমান সরকার স্বাস্থ্য সেবা জনগণের দ্বারগোড়ায় পৌছে দিতে ব্যাপক উদ্যোগ গ্রহন করেছে। এ সেবা অব্যাহত রাখতে সমস্যাগুলো দ্রুত সমাধানের দাবী জানিয়েছেন এলাকাবাসী।
হাসপাতালে চিকিৎসা নিতে আসা রোগী শুকুর আলী মন্ডল, আলাউদ্দিন শেখ, আমজাদ হোসেন, আলেয়া বেগম, সুফিয়া খাতুন জানান, হাসপাতালে ডাক্তার ও নার্সদের আন্তরিকতার কোন ঘাটতি নেই। বিশেষজ্ঞ ডাক্তার ও প্রয়োজনীয় মেশিন না থাকার কারণে উন্নত ধরনের চিকিৎসা সেবা পাওয়া যাচ্ছে না। অচিরেই অভিজ্ঞ ডাক্তার নিয়োগ দেওয়ার জন্য প্রধানমন্ত্রীর নিকট দাবী জানাচ্ছি।
সিনিয়র স্টাফ নার্স কল্পনা রানী, নমিতা রানী জানান, আমরা সব সময়ই আন্তরিকতার সাথে রোগীদের সেবা দিয়ে আসছি। বিশেষজ্ঞ ডাক্তারের পদায়ন হলে পুর্নাঙ্গ সেবা দিতে পারবো।
উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. এস,এম আব্দুল্লাহ আল মুরাদ জানান, সমস্যা সমাধানে উর্ধতন কর্তৃপক্ষকে অবগত করা হয়েছে। আশা করছি দ্রুত এ সমস্যাগুলোর সমাধান হবে।

(Visited 45 times, 1 visits today)