গোয়ালন্দে ভুল টার্গেটে পরিনত হয়ে পেট্রোলের আগুনে পুড়ল বৃদ্ধার দেহ –

শামীম শেখ, রাজবাড়ী বার্তা ডট কম :

 

রাজবাড়ীর গোয়ালন্দে ভুল টার্গেটের শিকার হয়ে পেট্রোলের আগুনে দগ্ধ হয়েছেন আনোয়ারা বেগম (৭০) নামের এক বৃদ্ধা। তিনি উপজেলার পূর্ব উজানচর গফুর মন্ডল পাড়ার মৃত কেয়াদত বেপারীর স্ত্রী। শনিবার দিনগত রাত ২টার দিকে বৃদ্ধার বাড়ীতে ঘুমন্ত অবস্থায় ঘটনাটি ঘটে।
থানা পুলিশ জানায়, এ ব্যাপারে বৃদ্ধার ছেলে বিল্লাল বেপারী বাদী হয়ে রবিবার বিকেলে গোয়ালন্দ ঘাট থানায় মামলা দায়ের করেছেন। মামলায় উজানচর পূর্ব ডাঙ্গী এলাকার মোসলেমের ছেলে জাহাঙ্গীর হোসেন সহ অজ্ঞাত আরো ২/৩জনকে আসামী করা হয়েছে। ঘটনার পর থেকে জাহাঙ্গীর পলাতক রয়েছে।
জাহাঙ্গীরের সাথে বিল্লাল বেপারীর মেয়ে শীলা আক্তারের (২২) ২ বছর আগে বিয়ে হয়। তাদের ৬মাস বয়সী একটি পুত্র সন্তান রয়েছে। কিন্তু প্রায় ২মাস আগে বনিবনা না হওয়ায় তাদের মধ্যে তালাক হয়ে যায়। এর পর শীলা কাজের জন্য সৌদী আরবে যাওয়ার উদ্দেশ্যে ফরিদপুুরের একটি ট্রেনিং সেন্টারে ভর্তি হয়। মাস খানেক পর তার সৌদিতে যাওয়ার কথা রয়েছে। এ নিয়ে শীলার প্রতি জাহাঙ্গীরের প্রচন্ড ক্ষোভ রয়েছে।
মামলার বাদী বিল্লাল বেপারী ও তার বোন সাজেদা বেগম জানান, শীলা ফরিদপুর ট্রেনিং সেন্টারে থাকায় ঘটনার রাতে তার বিছানায় আমাদের মা শুয়েছিলেন। রাত ২টার দিকে বিশেষ কায়দায় ঘরের জানালার স্ক্রু খুলে প্লষ্টিকের বোতলে করে বিছানার উপর পেট্রোল ঢেলে দেয় দুর্বৃত্তরা। এর পর বাঁশের লাঠির মাথায় পাটকাঠি বেঁধে ভিতরে আগুন দেয়। এতে কম্বলে আগুন ধরে গেলে আমাদের মায়ের শরীরের বিভিন্ন গুরুতরভাবে পুড়ে যায়। টের পেয়ে আমরা ঘরের দরজা ভেঙ্গে তাকে উদ্ধার করে রাতেই গোয়ালন্দ উপজেলা হাসপাতালে এনে ভর্তি করি। মূলত শীলাকে পুড়িয়ে মারার উদ্দেশ্যে জাহাঙ্গীর এ ঘটনা ঘটিয়েছে বলে তারা অভিযোগ করেন।
গোয়ালন্দ হাসপাতালের মেডিকেল অফিসার ডাঃ মোঃ নুরুল ইসলাম জানান, রবিবার দুপুরের পর দগ্ধ বৃদ্ধার অবস্থা ভাল না হওয়ায় তাকে উন্নত চিকিৎসার জন্য ফরিদপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে স্থানান্তর করা হয়।
গোয়ালন্দ ঘাট থানার ওসি মীর্জা আবুল কালাম আজাদ জানান, বৃদ্ধা দগ্ধের ঘটনায় থানায় মামলা হয়েছে। প্রধান আসামী জাহাঙ্গীর হোসেন পলাতক রয়েছে। আমরা তাকে আটকের চেষ্টা করছি।

(Visited 80 times, 1 visits today)