রাজবাড়ীর গড়াই নদী থেকে অবৈধ ভাবে বালু উত্তোলনের অভিযোগ –

রাজবাড়ী বার্তা ডট কম :

 

রাজবাড়ীর পাংশা উপজেলার কশবামাজাইল ইউনিয়নের গড়াই নদীর নাদুরিয়া ঘাট সংলগ্ন এলাকা থেকে অবৈধ ভাবে বালু উত্তোলনের অভিযোগ পাওয়া গেছে। গত সোমবার ওই অভিযোগটি রাজবাড়ীর জেলা প্রশাসকের কাছে দাখিল করা হয়েছে। অভিযোগ দাখিল করেছেন, রাজবাড়ীর কালুখালী উপজেলার শাওরাইল ইউনিয়নের পাতুরিয়া মৌজার বালু মহলের ইজারাদার মোঃ আরশেদ আলী।
অভিযোগকারীর দাবী, জেলার কশবামাজাইল ইউনিয়নের গড়াই নদীর নাদুরিয়া ঘাটের এক কিলো মিটার পূর্বে বেড়িবাঁধের পাশে গড়াই নদী থেকে কতিপয় বালু দস্যু অবৈধভাবে প্রতিদিন বিপুল পরিমান বালু উত্তোলন করছে। অবৈধ অপরিকল্পিত ভাবে বালু উত্তোলনের ফলে বেড়িবাঁধ হুমকির সম্মুখিন এবং পরিবেশের মারাতœক বিপর্যয় হচ্ছে।এতে সরকার বিপুল পরিমান রাজস্ব হারাচ্ছে। সেই সাথে অবৈধ বালু উত্তোলনকারীদের গ্রুপিং-এর ফলে যে কোন সময় দাঙ্গা হাঙ্গামাসহ আইনশৃঙ্খলার অবনতি হতে পারে। যে কারণে তিনি সেখানে মোবাইল কোর্ট পরিচালনাসহ আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণের দাবী জানান।
তিনি আরো বলেন, শুধু নাদুরিয়াই নয় জেলার বালিয়াকান্দি উপজেলার নারুয়া ইউনিয়নের কোনাগ্রাম এলাকা থেকেও অবৈধ ভাবে বালু উত্তোলন করা হচ্ছে। নাদুরিয়াতে আবু দাউদ, হাকিম, বাদশা ও সাইফুলসহ বেশ কয়েকজন এবং কোনাগ্রামের জামাল ও আজিজসহ আরো বেশ কয়েকজন বালু উত্তোলন করছেন।
অবৈধভাবে বালু উত্তোলনকারী ব্যবসায়ী আবু দাউদ জানান, তিনিসহ ১০/১২ জন ব্যবসায়ী মাগুরা জেলার শ্রীপুর উপজেলার চাটর্গা মৌজার বিপুল পরিমান জমি ইজারা নিয়ে ড্রেজার দিয়ে বালু কাটছেন। এতে গড়াই নদীর বাঁধের কোন ক্ষতি হচ্ছে না।
জেলার পাংশা উপজেলার সহকারী কমিশনার (ভূমি) শেখ রাসেদুজ্জামান জানান, এক সপ্তাহ পূর্বেও ওই এলাকায় ভ্রাম্যমান আদালত পরিচালনা করা হয়। সে সময় অবৈধ ভাবে বালু তোলার ড্রেজার জব্দ করা হয় এবং বালু কাটা বন্ধ করা হয়। প্রয়োজনে সেখানে ফের ভ্রাম্যমান আদালত পরিচালনা করা হবে।

(Visited 43 times, 1 visits today)