গোয়ালন্দে চতুর্থ শ্রেণির ছাত্রীকে ধর্ষণ চেষ্টার অভিযোগ-

আজু সিকদার, রাজবাড়ী বার্তা ডট কম :

rajbari-1-02-10

রাজবাড়ীর গোয়ালন্দে ৪র্থ শ্রেণির এক ছাত্রীকে ধর্ষণ চেষ্টার অভিযোগ পাওয়া গেছে। এ ঘটনায় ওই ছাত্রীর পিতা বাদী হয়ে গোয়ালন্দ ঘাট থানায় মামলা দায়ের করেছেন। এর আগে বিষয়টিকে ধামাচাপা দিতে স্থানীয়ভাবে সালিশ বৈঠকের চেষ্টা করে স্থানীয় প্রভাবশালীরা।
ঘটনার পর থেকে ওই ছাত্রীর উদ্বিগ্ন পরিবার তাকে স্কুলে যাওয়া বন্ধ করে দিয়েছে। ঘটনার প্রতিবাদ জানিয়ে দৌলতদিয়া চাইল্ড ক্লাবের শিশুরা গতকাল রবিবার সভা করে অপরাধীকে দ্রুত গ্রেফতার ও শাস্তির দাবী জানায়।
মামলার এজাহার সূত্রে জানা যায়, গত ২৮ সেপ্টেম্বর বুধবার সন্ধ্যার দিকে ওই গ্রামের গফুর মন্ডলের ছেলে ছানোয়ার ওরফে ছানু (২০) ওই ছাত্রীর বাড়ীতে যায়। ছানু স্থানীয় একটি এনজিও’র কর্মী হিসেবে কাজ করে। বাড়ীতে কাউকে না দেখে ছানু ওই ছাত্রীকে জানায় সে ঋণের কিস্তির টাকা নিতে এসেছে। এ সময় সে ঘর থেকে পাশ বই এনে দিতে বলে। শিশুটি বই আনতে ঘরে ঢুকলে সেও ঘরে ঢুকে দরজা বন্ধ করে দেয়। এ সময় ছানু ধর্ষণের উদ্দেশ্যে শিশুটিকে জাপটে ধরে তার শরীরের পোষাক খোলার চেষ্টা করে। শিশুটি তখন চিৎকার করে ঘর থেকে বের হতে সক্ষম হয়। এর ফাকে ছানু দ্রুত স্থান ত্যাগ করে।
এদিকে ঘটনা জানাজানি হলে স্থানীয় প্রভাবশালীরা বিষয়টি থানায় না জানাতে এবং সালিশ করে দেয়ার জন্য শিশুটির পিতাকে চাপ দিতে থাকে। সে অনুযায়ী গত শুক্রবার স্থানীয় ইউপি সদস্য আইয়ুব আলী খানসহ এলাকার প্রভাবশালী লোকজনের উপস্থিতিতে সালিশের আয়োজন করা হয়। কিন্তু সালিশে ধর্ষণ চেষ্টার সাক্ষী প্রমাণ হাজির করতে বললে শিশুটির পরিবার অসহায় হয়ে পড়ে। এক পর্যায়ে শিশুটির বাবা সালিশ থেকে বের হয়ে আসেন এবং নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে গোয়ালন্দ ঘাট থানায় মামলা দায়ের করেন।
এ প্রসঙ্গে দৌলতদিয়া ইউপি’র ৬নং ওয়ার্ডের সদস্য আইয়ুব আলী খান জানান, তারা কয়েকজন প্রকৃত ঘটনা জানার জন্য ভিকটিম ও অভিযুক্ত যুবকসহ উভয় পক্ষের অভিভাবকদের নিয়ে এলাকার একটি বাড়ীতে বসেছিলেন। কিন্তু ঘটনা জটিল মনে হওয়ায় তারা কোন মিমাংসায় পৌছাতে পারেন নি।
এ ব্যাপারে গোয়ালন্দ ঘাট থানার ওসি মীর্জা আবুল কালাম আজাদ জানান, মামলার আসামী পলাতক রয়েছে। তবে তাকে ধরতে পুলিশ চেষ্টা চালাচ্ছে। ধর্ষণ বা ধর্ষণ চেষ্টা সালিশ অযোগ্য অপরাধ। এ ক্ষেত্রে যারা সালীশ করার চেষ্টা করেছিলেন তারা মূলত অপরাধ করেছেন।

(Visited 62 times, 1 visits today)