গোয়ালন্দে ১২ কি: মি: সড়ক জুড়ে যানজট, বিকল্প রুট ব্যবহারের পরামর্শ-

আজু সিকদার, রাজবাড়ী বার্তা ডট কম :

SAMSUNG CAMERA PICTURES

গত তিন দিন ধরে অব্যাহত থাকা দৌলতদিয়া ঘাট এলাকায় সৃষ্ট যানজট পরিস্থিতি শনিবার আরো ভয়াবহ আকার ধারন করেছে। দৌলতদিয়া-পাটুরিয়া নৌরুটে ফেরি স্বল্পতা, দৌলতদিয়া প্রান্তে ঘাট সংকট ও ঈদের ছুটি শেষে একযোগে অতিরিক্ত যানবাহন আসতে থাকায় এ অবস্থার সৃষ্টি হয়েছে।
আজ শনিবার সন্ধ্যা সাড়ে ৭টা নাগাদ যানবাহনের সারি ফেরিঘাটের জিরো পয়েন্ট থেকে মহাসড়কের রাজবাড়ী সদর উপজেলার খানখানাপুর ছোট ব্রীজ পর্যন্ত প্রায় ১০ কি.মি. এবং গোয়ালন্দ মোড় থেকে বসন্তপুর নিমতলা পর্যন্ত আরো ২কি.মি. পর্যন্ত বিস্তৃত ছিল। এ অবস্থায় যাত্রী ও যানবাহন চালকদের বিকল্প রুট ব্যবহারের জন্য পরামর্শ দিয়েছে কর্তৃপক্ষ।
আটকে পড়া অসংখ্য যাত্রী অবর্ণনীয় দুর্ভোগের শিকার হন। দীর্ঘ সময় গাড়ীতে বসে থাকার পর বহু যাত্রীকে দেখা যায় তাদের বাস ছেড়ে দিয়ে পায়ে হেটে ঘাটের দিকে রওনা দিতে। কর্মমূখী মানুষগুলো হাতে ও মাথায় লাগেজ এবং মহিলা ও শিশুদের নিয়ে ৭-৮কি.মি. দুরের ঘাটে পৌছাতে সীমাহীন কষ্টের শিকার হন। তবে আইন শৃঙ্খলা বাহিনীর বিপুল সংখ্যক সদস্য মহাসড়কের এক পাশ ফাকা রেখে ফেরি থেকে নামা যানবাহনগুলো নির্বিঘেœ চলে যেতে নিরন্তর চেষ্টা করে যাচ্ছে। কিন্তু অসংখ্য প্রাইভেটকার ও মাইক্রোবাস প্রায়ই সিরিয়াল ভঙ্গ করে মাঝেই মধ্যেই যান চলাচল সম্পূর্ণ বন্ধ করে দিচ্ছে। অপর পাশে আটকে পড়া যানবাহনগুলো অত্যন্ত ধীর গতিতে ঘাটের দিকে আগাতে থাকে।
সংশ্লিষ্ট সূত্র জানায়, দৌলতদিয়া-পাটুরিয়া নৌরুটের ১৭টি ফেরির মধ্যে ৪টি বন্ধ রয়েছে। এছাড়া দৌলতদিয়ার ৪টি ফেরি ঘাটের মধ্যে ভাঙনে বিলিন হয়ে আছে ২টি। শুক্রবার বিকেলে নদী ভাঙনের কারণে বন্ধ হয়ে যায় ২নং ফেরিঘাটটি। রাত ১০টার দিকে ঘাটটি সংস্কার করে চালু করা হয়। এ ঘাটের মূূল পাকা সড়কের আড়া-আড়ি অধিকাংশ নদীতে বিলিন হওয়ায় যান চলাচল ঝুকিপূর্ণ হয়ে পড়ে। এ অবস্থায় শুধুমাত্র ছোট যানবাহনগুলো পারাপার হতে থাকলেও শনিবার বেলা ২টার দিকে ঘাটটি আবারো ভাঙনে ক্ষতিগ্রস্থ হয়ে বন্ধ হয়ে যায়। এ ছাড়া ২নং ঘাটটি ঈদের আগে ১১ সেপ্টেম্বর রাতে বিলিন হয়ে বন্ধ হয়ে আছে। তীব্র ¯্রােতের কারণে সেখানে কাজ করা যাচ্ছে না।
সরেজমিন দেখা যায়, মহাসড়কে তীব্র যানজট থাকায় ব্যাক্তিগত বহু যানবাহন ও যাত্রী অটোরিক্সা-থ্রিহুইলার যোগে প্রায় ১০-১৫ কিলোমিটার ঘুরে জমিদার ব্রীজ ও পদ্মার মোড় দিয়ে গোয়ালন্দ বাজার আড়তপট্টি ও চর দৌলতদিয়ার বিকল্প সড়কে ঘাটে পৌছাচ্ছে। কিন্তু ওই সড়কটি অত্যন্ত সরু ও জড়াজির্ণ হওয়ায় ওই সড়কটিতেও প্রায় সারাদিনই যানজট লেগে ছিল। এতে যাত্রী ও চালকরা প্রচন্ড দূর্ভোগের শিকার হন। কিন্তু এই সড়কে পুলিশের কোন উপস্থিতি দেখা যায়নি।

(Visited 94 times, 1 visits today)